কালীগঞ্জ (গাজীপুর) সংবাদদাতাঃ গাজীপুরের কালীগঞ্জে সোমবার সকালে পরক্রিয়া প্রেমে বাধা দেয়ায় স্বামীর লাঠির আঘাতে এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার জাঙ্গালীয়া ইউনিয়নের কলুন গ্রামের মৃত আব্দুল কাইয়ুমের কন্যা রিতু’র (২৫) সাথে ১০ বছর পূর্বে বক্তারপুর ইউনিয়নের বেরুয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদের দিনমজুর পুত্র মোবারক হোসেনের বিয়ে হয়। এই দম্পত্তির রিফাত (৮) ও মাহিয়া (২) নামে দুই সন্তান রয়েছে।

নিহতের চাচা হেমায়েত ও রাশেদ জানান, পারিবারিক ভাবে রিতুর বিয়ের পর সে জানতে পারে একই গ্রামের জনৈক মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী হাজেরা বেগমের সঙ্গে মোবারকের পরক্রিয়া সম্পর্ক রয়েছে। এতে বাধা দিলে রিতুর স্বামী তাকে প্রায়ই যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করতো।

রিতুর ভাই নাজমুল জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পরক্রিয়া প্রেমের বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় মোবারক কাঠ দিয়ে মাথায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই রিতুর মৃত্যু হয়। পরে শাশুড়ি জয়গননেছা স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়ে যান।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মাসুমা শারমিন জানান, মাথায় আঘাতের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে রিতুর মৃত্যু হয়েছে। তার মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

কালীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঙ্কজ দত্ত জানান, এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Share