সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী স্তেফান লোফভেনের আমন্ত্রণে তিনদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে দেশটিতে পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার স্থানীয় সময় রাত ৯টা ৪০মিনিটে স্ক্যানডিনাভিয়ান এয়ারলাইন্সের এসকে-৫২৮ ফ্লাইটে সুইডেনের স্টকহোম আরলান্ড বিমানবন্দরে পৌঁছেন তিনি।

এ সময় সুইডেন সরকারের চিফ অব প্রটোকল ক্লাস মলিন, বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম সারোয়ার ও তার স্ত্রীসহ সুইডেনের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা প্রধানমন্ত্রীকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান। পরে দেশটির সামরিক বাহিনীর একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদর্শন করে।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার ছোট বোন শেখ রেহানাও সফরসঙ্গী হিসেবে রয়েছেন।

শেখ হাসিনা ও স্টিফেন লোফভেনের মধ্যে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সুইডিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক বৈঠক হবে। এতে দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ক ও বাণিজ্য উন্নয়নের ব্যাপারে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। দুই নেতার শীর্ষ বৈঠক শেষে বাংলাদেশ-সুইডেন দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করে একটি যৌথ ইশতেহার অথবা ঘোষণাপত্র সই হওয়ার কথা রয়েছে।

এছাড়া দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সহযোগিতা জোরদারে সুইডেন-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল (এসবিবিসি) এবং নর্ডিক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এনসিসিআই, ঢাকা) মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে। বৈঠক শেষে সুইডিশ প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন শেখ হাসিনা।

দেশটির রাজকীয় প্যালেসে রাজা কার্ল গুস্তাফের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সুইডিশ উপপ্রধানমন্ত্রী ইসাবেলা লেভিন, বিচার ও অভিবাসন মন্ত্রী মরগান জোহানসন এবং সুইডেনের ডেপুটি স্পিকার শেখ হাসিনার সঙ্গে গ্র্যান্ড হোটেলে এসে সাক্ষাৎ করবেন। সন্ধ্যায় তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে জানানো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ১৬ জুন সকাল ১০টায় বাংলাদেশ-সুইডেন ব্যবসা ও বিনিয়োগ ফোরামে বক্তব্য দেবেন। এর আগে সুইডিশ পোশাক জায়ান্ট এইচঅ্যান্ডএম, এবিবি ও দেশটির সবচেয়ে বড় ইনভেস্টর গ্রুপ জ্যাকব ওয়ালেনবার্গের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাদা বৈঠক করবেন তিনি। আগামী ১৭ জুন তিনি লন্ডন হয়ে দেশে ফিরবেন বলে জানা গেছে।

Share