মোঃ আবু শহীদ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর): ভোরের আকাশে ঘন কুয়াশা আর হিমালয়ের শীতল বাতাসের তীব্র হাওয়ায় দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বোরো চাষে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কৃষককুল। ধারনা করা হচ্ছে চলতি মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় বোরো চাষে উৎসাহ ও ব্যস্ততা বেড়েছে এই এলাকার কৃষকদের। বোরো চাষের এই মৌসুম চলবে মার্চ এর প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত,তাই শীত উপেক্ষা করেই কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছেন এই জনপদের কৃষক।

সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ফসলের মাঠ ঘুরে দেখা যায়, কুয়াশা ঢাকা শীতের সকাল আর হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করেই বির্স্তীণ মাঠে কৃষকরা তাদের বোরো ক্ষেতের জমি প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। বীজতলায় ধানের চারা পরিচর্চার পাশাপাশি ফসলের মাঠকে চাষের উপযোগী করতে কাজ চলছে পুরোদমে। একই সাথে চলছে বীজতলা থেকে ধানের কচি চারা সংগ্রহ এবং ট্রাক্টর ও পাওয়ার টিলার দিয়ে জমি চাষের কাজ। কৃষকের ব্যস্ততায় শীত যেন তাদের স্পর্শ করছেনা। শরীরে রয়েছে হালকা পোষাক,মাথায় গরম কাপড়। সবমিলিয়ে ফুরফুরে মেজাজে বোরো চাষে ব্যস্ত এই এলাকার কৃষক। উপজেলার কোন কোন এলাকায় আবার মাঠে চারা রোপনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার ১৩হাজার ৮শ ২হেক্টর জমিতে বোরো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এ পর্যন্তু ২হাজার ৮শ ৫০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চারা লাগানো হয়েছে। তারা আরও জানান, মাঠে বোরো ধানের চারা লাগানোর সময় শেষ হয়নি, আর তাই লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হওয়ার ক্ষেত্রেও কোন প্রকার সমস্যা হবার সম্ভাবনা নেই।

স্থানীয় কৃষকরা জানান,গত বছরের তুলনায় চলতি বছরে ধানের দাম বেশি পাওয়ায়,বেশির ভাগ কৃষকরা বোরো চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। অনেক কৃষক ভুট্রা,গম চাষ না করে বোরো চাষ করছেন। আর তাই ধারনা করা হচ্ছে এ মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে বোরো চাষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।