প্লাবন গুপ্ত শুভ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর): দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে গত দু’দিনের টাকা প্রবল বর্ষণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। পারায়বেকার হয়ে পড়ায় মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন দিনমজুর ও ক্ষেতমজুর পরিবারগুলো। অবিরাম বর্ষণের কারণে শহরের বেশ কয়েকটি রাস্তা বৃষ্টির পানিতে সয়লাব হয়ে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন এলাকাবাসী।

শনিবার ও গত শুক্রবার (১১আগস্ট) টানা দুইদিনের প্রবল বর্ষণে স্থবির হয়ে গেছে জনজীবন। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে কেউ বের হচ্ছে না। শহরের বেশির ভাগ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ফাঁকা হয়ে গেছে রাস্তাঘাট। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উপস্থিতি থাকলেও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নেই বললেই চলে। দু’দিনের বর্ষণে খাল-বিল, নদী-নালা, ডোবা ভরে গেছে। উপচে পড়েছে পুকুরের মাছ। বাজারে আলু, বেগুনের দাম চড়া থাকলেও গতকাল শনিবার মাছের দাম ছিল অকেবারেই কম। ৫০টাকা থেকে শুরু করে ৩০০ টাকা কেজিতে প্রায় সব মাছই পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের ঘাটপাড়া এলাকার ক্ষুদ্র চা দোকানী গোলাম রব্বানী সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে শুরু হওয়া টানা বর্ষণের কারণে শনিবার পর্যন্ত দোকানে বিক্রি হয়েছে মাত্র ৩১ টাকা। কেটলির চা পড়ে রয়েছে কেটলিতেই। বৃষ্টির কারণে দোকানে ক্রেতারা আসতে পারেনি। গোপালপুর এলাকার ক্ষেতমজুর সুবাস রায় বলেন, টানা বৃষ্টির কারণে ক্ষেতে কাজ করতে যেতে পারেননি। তাই বাড়িতে বসেই অলস সময় কাটাচ্ছেন। পৌর এলাকার চকচকা গ্রামের দিনমজুর মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, শরীরে জ্বরের কারণে দুইদিন কাজকর্ম করতে পারেননি। আজ (গতকাল) শনিবার ও গত শুক্রবার কাজ করার কথা ছিল। কিন্তু বৃষ্টির কারণে কাজে যেতে পারেননি তাই প্রতিবেশির কাছে ১৫০টাকা ঋণ নিয়ে দুপুরের খাবার যোগাড় করেছেন পরিবারের। অ¤্রবাড়ির রিকশা-ভ্যান চালক আব্দুল জব্বার বলেন, বৃষ্টির কারণে রিকশা-ভ্যান নিয়ে রাস্তায় যেতে পারেননি। তাই বেকার হয়ে বাড়িতে বসে আছেন। তবে বৃষ্টি থামলে রাস্তায় যাবেন। শহরের বেশির ভাগই দোকান পাট বন্ধ রয়েছে। রাস্তাগুলো ফাঁকা হয়ে পড়েছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউই বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না। তবে টানা বৃষ্টির কারণে শহরের ছাতার দোকানগুলোতে ছাতা বিক্রির ধুম পড়ে গেছে।

শহরের পত্রিকা বিক্রেতা মেরাজ আলী ও আব্দুল মোন্নাফ বলেন, টানা বৃষ্টির কারণে বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত পাঠকদের কাছে পত্রিকা দেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে দু’চারজনার কাছে পত্রিকা দিতে গিয়ে বেশ কিছু পত্রিকা বৃষ্টির পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। তাই বৃষ্টি না থামা পর্যন্ত পত্রিকা সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না।

এদিকে বৃষ্টির কারণে পৌর শহরের কাঁটাবাড়ি রায়পাড়া, কাজিপাড়া, পৌর বাজার, গড় ইসলামপুর, সুজাপুর প্রফেসরপাড়া, টিটিই মোড় এলাকার রাস্তা সয়লাব হয়ে গেছে। এতে পথচারীদের চলাচলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

Share